BOESL registration 2022 Korea । দক্ষিণ কোরিয়াতে বোয়েসেলের মাধ্যমে চাকরির বিজ্ঞপ্তি ২০২২

সরকারি ভাবে দক্ষিণ কোরিয়াতে যাওয়ার সুযোগ – দক্ষিণ কোরিয়া যেতে ভাষা পরীক্ষা দিতে হবে– দক্ষিণ কোরিয়াতে বোয়েসেলের মাধ্যমে চাকরির বিজ্ঞপ্তি ২০২২

ভাষা পরীক্ষা দিয়ে পাস করতে হবে – এমপ্লয়মেন্ট পারমিট সিস্টেম (ইপিএস)-এর আওতায় দক্ষিণ কোরিয়ার শিল্পখাতে চাকরির জন্য কোরীয় ভাষা পরীক্ষায় অংশগ্রহণের লক্ষ্যে নিম্নবর্ণিত যােগ্যতা ও শর্তপূরণ সাপেক্ষে নির্ধারিত নিবন্ধন সাইট eps.boesl.gov.bd-এ দুই পদ্ধতিতে নিবন্ধন করার সুযােগ পাবেন। আবেদন করতে ক্লিক করুন: eps.boesl.gov.bd

দক্ষিণ কোরিয়াতে চাকরির লক্ষ্যে কোরীয় ভাষা পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য অনলাইন নিবন্ধন সংক্রান্ত নোটিশ প্রদান করা হয়েছে ফেসবুক পেইজে: https://www.facebook.com/boesl.gov.bd। কোরীয় ভাষা পারদর্শীদের প্রাথমিক ও চূড়ান্ত নিবন্ধন শুরু হবে ২৮ আগস্ট ২০২২ খ্রি. তারিখ (এক দিন)। কোরীয় ভাষা অপারদর্শীদের প্রাথমিক নিবন্ধন শুরু হবে ২৯-৩১ আগস্ট ২০২২ খ্রি. তারিখ (তিন দিন)। কোরিয়া যাওয়ার যে কোন আপডেট পেতে ফেসবুক পেইজে এখনই ফলো দিয়ে রাখুন।

বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (বোয়েসেল) রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন একমাত্র জনশক্তি প্রেরণকারী প্রতিষ্ঠান। জনশক্তি প্রেরণের মাধ্যমে অধিক বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের উদ্দেশ্যে ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ সরকার বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (বোয়েসেল) প্রতিষ্ঠা করে। বোয়েসেলের প্রধান উদ্দেশ্য হলো স্বচ্ছতার সাথে স্বল্প ব্যয়ে সঠিক কাজে সঠিক কর্মী বিদেশে প্রেরণের মাধ্যমে পারস্পারিক বিশ্বাস স্থাপন, সর্বোৎকৃষ্ট সেবা প্রদান এবং অন্যদের তুলনায় কম ব্যয়ে বিদেশে কর্মী প্রেরণ। বোয়েসেল একমাত্র সরকারি মালিকানাধীন জনশক্তি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান যা বেসরকারি মালিকানাধীন রিক্রটিং এজেন্সির সাথে প্রতিযোগিতা করে স্বল্প ব্যয়ে স্বচ্ছতার সাথে ন্যূনতম অভিবাসন ব্যয়ে বিদেশে কর্মী প্রেরণ নিশ্চিত করে। বোয়েসেল বিদেশী নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্বল্পতম সময় স্বল্পখরচে স্বচ্ছতার সাথে দ্রুত সেবা প্রদানের মাধ্যমে তাদের সন্তুষ্টির সাথে কাজ করে থাকে।

BOESL registration 2022 Korea Job Circular 2022 / দক্ষিণ কোরিয়াতে বোয়েসেলের মাধ্যমে চাকরির বিজ্ঞপ্তি ২০২২

নির্ধারিত সময়ে ৯০০০ জন প্রার্থীর চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধন সাইট বন্ধ হয়ে যাবে। আগামীকাল সকাল ৮.০০ থেকে ১২.০০ পর্যন্ত।

আবেদনের যােগ্যতা ও শর্তাবলী ২০২২- শিক্ষাগত যােগ্যতা ন্যূনতম এস.এস.সি/সমমান। বয়সসীমা: ২৯.০৯.১৯৮২ থেকে ২৮.০৮.২০০৪ পর্যন্ত। পাসপাের্ট-এর মেয়াদ হালনাগাদ থাকা সাপেক্ষে। যার কালার ব্লাইভনেস ও রঙ বােঝার সক্ষমতার সমস্যা নেই। কোরীয় ভাষা পড়া, লেখা ও বােঝার পারদর্শিতা থাকতে হবে। মাদকাসক্ত/সিফিলিস শনাক্ত ব্যক্তিগণ অযােগ্য বলে বিবেচিত হবেন। ফৌজদারি অপরাধে জেল বা অন্য কোনাে শাস্তি হয়নি। যারা দক্ষিণ কোরিয়ায় অবৈধভাবে অবস্থান করেনি। যার উপর বিদেশ যাত্রায় কোনাে নিষেধাজ্ঞা নেই বা যেতে কোনাে সমস্যা নেই। যারা কোরিয়ায় ই৯/ই১০ ভিসায় সর্বমােট ৫ বৎসরের বেশি থাকেনি।

কোরীয় ভাষা পারদর্শীদের প্রাথমিক নিবন্ধন প্রক্রিয়া ২০২২

  • কোরীয় ভাষা পরীক্ষায় অংশগ্রহণের লক্ষ্যে কোরীয় ভাষা পারদর্শী উপরে বর্ণিত যােগ্যতা ও শর্তাবলী পূরণকারী আগ্রহী প্রার্থীগণকে আগামী ২৮ আগস্ট ২০২২ খ্রি. তারিখ সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত আগে আসলে আগে পাবেন ভিত্তিতে (first come first serve) প্রাথমিক নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে।
  • নির্ধারিত সময়ে ১১০০০ জন প্রার্থীর প্রাথমিক নিবন্ধন সম্পন্ন হলে নিবন্ধন সাইট স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে | যাবে। প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীদের মধ্য হতে প্রথম ৯০০০ জন (Submission ID 20220000091 থেকে 20220o09000) চুড়ান্ত নিবন্ধনের লক্ষ্যে দুপুর ১২ ঘটিকার মধ্যে এইচআরডি কোরিয়ার নির্ধারিত পরীক্ষার ফি ৩১০০/- টাকা + অনলাইন ফি ৫০০/- টাকা, মােট ৩,৬০০ (তিন হাজার ছয়শ) টাকা বিকাশ কমিশন ৪১.৪০ (একচল্লিশ টাকা চল্লিশ পয়সা) অফেরতযােগ্য বিকাশ অ্যাপ-এর মাধ্যমে প্রদান সাপেক্ষে চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন করে কোরীয় ভাষা পরীক্ষার প্রবেশপত্র গ্রহণ করবেন। নির্ধারিত সময়ে ৯০০০ জন প্রার্থীর চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধন সাইট বন্ধ হয়ে যাবে।

নিবন্ধন ফি কি বিকাশে পরিশোধ করতে হবে?

জি হ্যাঁ । কোরীয় ভাষা অপারদর্শীদের প্রাথমিক নিবন্ধন (লটারি): কোরীয় ভাষা পরীক্ষায় অংশগ্রহণের লক্ষ্যে আগ্রহী প্রার্থীগণ ২৯ আগস্ট সকাল ১১ ঘটিকা থেকে ৩১ আগস্ট ২০২২ খ্রি. তারিখ বিকাল ৫ ঘটিকা পর্যন্ত নিবন্ধন ফি ৫০০/- (পাঁচশ) টাকা (অফেরতযােগ্য) + বিকাশ কমিশন ৫.৭৫ (পাঁচশ টাকা পঁচাত্তর পয়সা) বিকাশ গেটওয়ের মাধ্যমে মাধ্যমে জমা করে ‘Transaction ID গ্রহণ পূর্বক নির্ধারিত নিবন্ধন সাইটে চাহিত তথ্য পূরণ করে প্রাথমিক নিবন্ধন সম্পন্ন করতে পারবেন। যদি কোনাে প্রার্থীর নির্ধারিত নিবন্ধন ফি জমা দেয়ার পরও বিকাশ থেকে Transaction ID না পেয়ে থাকেন, তবে বিকাশ হটলাইন নম্বর ১৬২৪৭-এ যােগাযােগ করে Transaction ID নিশ্চিত হওয়ার সুযােগ রয়েছে। এ সংক্রান্ত ডকুমেন্টেশনমুনা বােয়েসেল-এর ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে। উল্লেখ্য যে, ২৯ ও ৩০ আগস্ট রাত ১২ ঘটিকা থেকে রাত ২ ঘটিকা পর্যন্ত নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের জন্য অনলাইন প্রাথমিক নিবন্ধন প্রক্রিয়া বন্ধ থাকবে।

চূড়ান্ত বাছাই প্রক্রিয়া কি কিভাবে সম্পন্ন হবে?

দক্ষিণ কোরিয়া সরকার কর্তৃক প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়ায় প্রথম রাউন্ড পরীক্ষা (EPS TOPIK) + (২) দ্বিতীয় রাউন্ড পরীক্ষা (ষ্টীল টেস্ট+ কম্পিটেন্সি টেস্ট) * প্রাপ্ত স্কোর যােগ। লটারির প্রক্রিয়া গ্রহণ করা হবে- নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে প্রাথমিক নিবন্ধনকৃত প্রার্থীর সংখ্যা বেশি হলে এইচআরডি কোরিয়া কর্তৃক লটারির মাধ্যমে কোরীয় ভাষা পরীক্ষা অংশগ্রহণের প্রার্থী নির্বাচন আগামী ৪ সেপ্টেম্বর ২০১২ খ্রি. তারিখ | রবাির সকাল ১১ ঘটিকায় বােয়েসেল কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হবে। আগ্রহী প্রার্থীগণ লটারির সময় উপস্থিত থাকতে পারবেন। পরীক্ষার ফল জানতে চোখ রাখুন- লটারিতে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের তালিকা বােয়েসেল-এর ওয়েবসাইট ও ফেসবুক পেইজ-এ প্রচার করা হবে। দক্ষিণ কোরিয়া সরকার কর্তৃক বার্ষিক কোটা ঘােষণার পর চূড়ান্ত রেজিস্ট্রেশনের শিডিউল ঘােষণা করা হবে। আরও উল্লেখ্য যে, চুড়ান্ত নিবন্ধনের পরও কোনাে প্রার্থীর আবেদনকৃত তথ্য বা প্রমাণাদি ভূয়া/মিথ্যা প্রমাণিত হলে তার ইপিএস নিবন্ধন বাতিল বলে গণ্য হবে। উক্ত নিবন্ধন কেবল কোরীয় ভাষা পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যােগ্যতা নিশ্চিত করে, কোরিয়াতে চাকরির নিশ্চয়তা বহন করে না।

পরিবর্তনটা কি? কোরিয়ায় ইপিএস ভিসার জন্য পরীক্ষার প্রক্রিয়ায় কিছুটা পরিবর্তন এনেছে এবং পক্ষে বিপক্ষে প্রতিক্রিয়াও দেখা যাচ্ছে। পরিবর্তনের আগেঃ লটারীর মাধ্যমে একটা নির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষ পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পেত। পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা কোরিয়ায় যাওয়ার সুযোগ পেতো। পরিবর্তনের পরঃ যারা কোরিয়ান ভাষা জানে তারা সরাসরি নিবন্ধনের সুযোগ পাবে। এবং যারা কোরিয়ান ভাষা জানে না তারা লটারীর মাধ্যমে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবে।পরিবর্তনের উদ্দেশ্য কি? ইপিএস শুরু হওয়ার পর থেকে বোয়েসেল (BOESL) কিংবা এইচআরডি কোরিয়া দেখেছে হাজার হাজার ছাত্রছাত্রী কোরিয়ান ভাষা শেখার পরও লটারীতে না আসায় পরীক্ষা দিতে পারেনি। ফলে তারা বঞ্চিতই থেকে যাচ্ছে। তাদেরকে একটা সুযোগ করে দেওয়া। এবং লটারীর মাধ্যমে বাকীদেরও একই সুযোগ থাকছে। এইচ আর ডি কোরিয়া বোয়েসেল এবং সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের অভিমত নিয়েই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যারা কোরিয়ান ভাষা জানে তাদের পরীক্ষা খুব দ্রুত হবে এবং যারা জানে না (লটারী মাধ্যমে নিবন্ধিত হবে) তাদেরকে ভাষা শেখার সময় দেওয়া হবে।

South korea job circular । দক্ষিণ কোরিয়ায় কৃষি ক্ষেত্রে কর্মী নিয়ােগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২

4 comments

  1. বয়স 45 এবং পেশা ডাইভিংয়ে সে কি দক্ষিণ কোরিয়ায় যেতে পারবে কি? বোয়েসেলের মাধ্যমে কি ভাবে আবেদন করবে যদি কেউ দয়া করে যানাতেন তা হইলে বড়ই উপকার হইত।

    1. যাবে কিন্তু নির্ধারিত সময়ে আবেদন করতে হবে। এখন আবেদনের সময় সীমা শেষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *